গলফিমিয়া ফুল

@
3
(2)

গল্ফিমিয়া

ভোজবাড়িতে দই পরিবেশনের জন্য এখন গোল গোল পাতলা চামচ ব্যবহার করা হয়। আমাদের ছোটবেলায় দেখেছি সেই চামচ ছিল অন্যরকম। তার আগার দিকটা একটু সরু, আর হাতলের দিক ক্রমশ চওড়া হয়ে গেছে। অনেকটা আইসক্রিমের কাঠের চামচের মতো। তাতে সুবিধা ছিল। ছোট ছেলেমেয়ের পাতে দেবার জন্য চামচের আগাটিই ছিল যথেষ্ট। আর পেটুক লোকদের জন্য গোটা চামচ ভর্তি করে এক এক দফায় ২০০/২৫০ দই কাটা যেত। তখন লোকে খেতোও খুব। তাদের এখনকার গোল চামচে পরিবেশন করলে হয়তো বিরক্ত হয়ে উঠেই যেত। এখন আর তেমন পেটুক বেশি দেখা যায় না।
সে যাক।

আজকের ফুলের পাপড়িগুলি সেই আগেকার দইয়ের চামচের মতো।
হলুদ রঙের এই সুন্দর ফুলটির বাংলা নাম আমি জানিনা। ওদেশে বলে গল্ফিমিয়া (Galphimia gracilis) বা সোনার বৃষ্টি (gold shower)
পূর্ব মেক্সিকোর মরু অঞ্চলের এই গাছটিকে কেউ কেউ Galphimia glauca বলেন। দুটি গাছ ও তাদের ফুল একই রকম দেখতে হলেও তাদের তারতম্যও আছে কিছু কিছু।
ফল ধরার সময় গ্রাসিলিসের পাপড়ি ঝরে যায়, কিন্তু গ্লকার পাপড়িগুলি থেকে যায়।
গ্রাসিলিসের একসাথে অনেক ফুল ফোটে, অন্যটির তা হয় না। তা ছাড়া দুইয়ের পরাগমঞ্জরীর রঙে পার্থক্য আছে। একজনের হলুদ, অন্যজনের লাল।

দুর্দান্ত গরম সহ্য করতে পারা এই গাছটি রাস্তার পাশে হেজ তৈরিতে কাজে লাগে। ঘন বেড়া যেমন হয়, তেমনি সুন্দর ফুলে পথের শোভা বৃদ্ধি করে। গল্ফিমিয়া আবার হোমিওপ্যাথি ওষুধের ভান্ডার। নানান সাইকিয়াট্রিক ওষুধ তৈরি হয় এই গাছ থেকে।

ফাল্গুনী মজুমদার

লেখাটিকে কতগুলি ট্রফি দেবেন ?

Click on a star to rate it!

Average rating 3 / 5. Vote count: 2

No votes so far! Be the first to rate this post.

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •   
  •  

Leave a Reply

Next Post

দূষণের রাজধানী উন্নয়নের গ্যাসচেম্বার

3 (2)           দিল্লির দূষণ ঘড়িতে ফের বিপদ ঘন্টি বাজছে। বায়োলজিক্যাল ক্লক মানে যেটার জন্য সকালবেলা ঠিক সময়ে অ্যালার্ম ছাড়াই অনেকের ঘুম ভেঙ্গে যায়, সেরকমই দিল্লির একটা নিজস্ব দূষণ ঘড়ি আছে। ফেব্রুয়ারি থেকে অক্টোবর ব্যাপারটা আন্ডার কন্ট্রোল থাকলেও গোলাতে শুরু করে নভেম্বর থেকে। চলে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। […]
error: কপি নয় সৃষ্টি করুন
%d bloggers like this: