শ্রেণি কক্ষে বিজ্ঞানসম্মত বিজ্ঞান শিক্ষা চাই পর্ব- ১

poribes news
4.4
(10)

bandicam 2019-11-25 11-57-17-528.jpg

আপাত দৃষ্টিতে মনে হতেই পারে শ্রেণিকক্ষে বিজ্ঞানসম্মত শিক্ষা দান এ আর নতুন কথা কি? কিন্তু নিজস্ব অভিজ্ঞতার মাধ্যমে এই কথা বলতেই হয় আজ বড় প্রাসঙ্গিক হয়ে পড়েছে উপরিক্ত কথাটি, বিশেষ করে শ্রেণি কক্ষে বিজ্ঞান বিষয়ে পাঠদানের ক্ষেত্রে। প্রথমেই একটু ভেবে দেখা দরকার আমরা যে বিজ্ঞান কে শুধু মাত্র বিশেষ জ্ঞান রূপে দেখানোর চেষ্টা করছি, সেটা কি আদৌ যুক্তিযুক্ত! কারণ বিশেষ জ্ঞান বলতেই একটি ধারণা সকলের মধ্যে গেঁথে যায় যে বিজ্ঞান বিষয়ে পাঠ নেওয়া ও ধারণা তৈরি করা সকল ছাত্রছাত্রীদের পক্ষে সহজ নয়। তাই বিজ্ঞানকে বিশেষ জ্ঞান না বলে “বিশেষ উপায়ে সংগৃহীত জ্ঞান” রূপে দেখানোর চেষ্টা হোক। যে জ্ঞান সকলের পক্ষে গ্রহণ করা সম্ভব।বিভিন্ন অভিধানে বিজ্ঞানের যে সংজ্ঞা দেওয়া হয়েছে তার কোনটাই পূর্ণাঙ্গ নয় বরং বিজ্ঞানের এক একটি বৈশিষ্ট্যকে তুলে ধরা হয়েছে। আসলে বিজ্ঞানকে বিষয় নয় প্রক্রিয়া রূপেই গণ্য করা বেশি যুক্তিযুক্ত। বিজ্ঞানকে শুধুমাত্র বিষয় হিসাবে তুলে ধরার পরিণাম নিজের অভিজ্ঞতা মাধ্যমে আপনাদের সামনে রাখছি। একজন বিজ্ঞানকর্মী হিসেবে একটি স্থানে “হাতে-কলমে বিজ্ঞান” কর্মসূচি করতে গিয়ে একটি অদ্ভুত অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হতে হয়।

bandicam 2019-11-25 11-59-18-190.jpg
মাধ্যমিক স্তরের ছেলেমেয়েদের সামনে প্রশ্ন ছুড়ে দিই, দন্ত চিকিৎসকরা কী ধরনের দর্পন ব্যবহার করেন? প্রতিটি ছেলেমেয়ে তৎক্ষণাৎ সঠিক উত্তর দেয়, কিন্তু যখন তাদের হাতে একটি অবতল দর্পন তুলে দিয়ে শুধাই, এটি কী ধরণের দর্পন? তখন বেশিরভাগই সঠিক উত্তর দিতে অসমর্থ হয়। দু একজন অবশ্যই ব্যতিক্রম। সমস্যাটি বুঝতে পারা অত্যন্ত সহজ। মুখস্ত নির্ভরতা; এই প্রবণতা একদিকে যেমন তাদের চিন্তাশক্তিকে হ্রাস করে দিচ্ছে অন্যদিকে বিজ্ঞানকে বাস্তবিক জীবনে প্রয়োগে বড় বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

bandicam 2019-11-25 12-01-59-934

ব্যবহারিক জ্ঞানের কী যে অপরিসীম ঘাটতি তার একটি নমুনা আপনাদের সামনে তুলে ধরা দরকার, ২০১৮ সালে বীরভূম জেলায় জেলার বিভিন্ন প্রান্তের বাছাই করা সপ্তম, অষ্টম, নবম শ্রেণির সর্বমোট ১৫০ জন ছাত্রছাত্রীদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল একটি বিশেষ ধরনের অভীক্ষায় যোগ দেবার। এই ধরণের অভীক্ষা শুধুমাত্র এই জেলায় প্রথম নয় সারা রাজ্যেও নজিরবিহীন। বিষয়টি এমন ছিল যে পরীক্ষার্থীকে পরীক্ষাকক্ষে প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গেই হাতে একটি প্রশ্নপত্র দেওয়া হয়। যে প্রশ্নপত্রের প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর দেবার জন্য প্রয়োজনীয় আনুষাঙ্গিক দ্রব্য সামগ্রি ওই কক্ষে টেবিলে ওপর রাখা থাকে। পরীক্ষার্থীকে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ওই সব বিষয় সামগ্রি ব্যবহার করেই উত্তর দিতে হয়। এমনই অভিনব পরীক্ষার উত্তরপত্রগুলি চোখ বোলাতে গিয়ে চমকে উঠি। সপ্তম শ্রেণির প্রশ্নপত্রে একটি প্রশ্ন রাখা হয়েছিল টেবিলে রাখা একটি আয়তকার কাগজের টুকরো থেকে একটি ত্রিভুজ কাট, এবং ত্রিভুজের কোণগুলি পরিমাপ করে যোগফল লেখ। টেবিলে মধ্যে কাঁচি, চাঁদা, আয়তকার কাগজ সবই রাখা ছিল।

bandicam 2019-11-25 12-04-13-459.jpg

মজার বিষয় হল যেখানে এই বাছাই করা পরীক্ষার্থীদের সকলের জানা যে ত্রিভুজের তিনটি কোণের সমষ্টি ১৮০ ডিগ্রি অথচ উত্তরপত্রে খুব কমজনের মধ্যে এই উত্তর পাওয়া গেল। অনেকক্ষেত্রে তো ঠিক মত ত্রিভুজই পাওয়া গেলো না। এই সব সমস্যার অন্যতম কারণ শ্রেণিকক্ষে অবৈজ্ঞানিক শিক্ষণ প্রক্রিয়া। পরিকাঠামোর দোহাই দিয়ে আজও বিজ্ঞান ও গণিতের ক্লাস চক -ডাস্টার নির্ভর। ফলেএকদিকে যেমন বাড়ছে মুখস্ত প্রবণতা, অন্যদিকে কমে যাচ্ছে বিজ্ঞান অন্যতম বৈশিষ্ঠ্য “যাচাই করে গ্রহণ/বর্জন করা” এই মানসিকতা। একথা ঠিক বর্তমানে পাঠ্য পুস্তক গুলিতে শিক্ষার্থীদের সক্রিয়তা বাড়াতে হাতে কলমে ওপর জোর দেওয়া হচ্ছে, শুধু তাই নয় রাষ্ট্রীয় মাধ্যমিক মিশন এর তরফ থেকে শিক্ষণ সহযোগী অত্যন্ত সুন্দর দুটি “science kits” দেওয়া হয়েছে। কিন্তু একথা স্বীকারে আপত্তি নেই এইসব আমরা কতটা ব্যবহার করছি তা নিয়ে কিন্তু প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। কিছু কিছু বিদ্যালয় অবশ্য চেষ্টা করছেন, কিন্তু এর ব্যাপকতা নেই।

AddText_11-08-11.10.55.PNG

লেখাটিকে কতগুলি ট্রফি দেবেন ?

Click on a star to rate it!

Average rating 4.4 / 5. Vote count: 10

No votes so far! Be the first to rate this post.

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •   
  •  

Leave a Reply

Next Post

শ্রেণিকক্ষে বিজ্ঞানসম্মত বিজ্ঞান শিক্ষা চাই পর্ব- ২

4.4 (10) এইসব সমস্যা থেকে উত্তরণের কিছু সমাধান ভেবে দেখা যেতে পারে – প্রথমত, প্রতিটি বিদ্যালয়ে আবশ্যিক ভাবে একটি করে ছোট ল্যাব তৈরি করা, আমি এই ল্যাব বলতে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের মত বিষয়ভিত্তিক বিজ্ঞানের ল্যাব-এর কথা বলছি না। বিশাল কিছু ভাবে এই ল্যাব বানানোর প্রয়োজন নেই। একটি ছোট্ট ঘর ব্যবহার […]
error: কপি নয় সৃষ্টি করুন
%d bloggers like this: