ভালকীমাচান ভ্রমণ

5
(2)
বর্ধমান জেলার গুসকরা বনাঞ্চলের ১৪৫০ হেক্টর জমি নিয়ে গড়ে উঠছে ভালকী বনক্ষেত্র। বর্ধমান জেলার আউসগ্রাম ২নং পঞ্চায়েত সমিতির দ্বারা ভালকীর এই অরণ্যের মাঝে বনবাংলােটি তৈরি হয় ১৯৯৩ সালে। তবে এখনও ঘন জঙ্গল ঘেরা এই লজটি সাধারণ পর্যটকের কাছে বিশেষ পরিচিত নয়। এই দ্বিতল লজের চতুর্দিকে সবুজ অরণ্যে ছাওয়া নির্জন প্রকৃতি। বাংলাের পাশেই রয়েছে এক বড় জলাশয় বা দিঘী। আবার এই জলাশয়কে ঘিরে বিভিন্ন রকম গাছপালা দিয়ে তৈরি হয়েছে এক গােলাকার বাগান। মাঝে সুন্দর পথ, রয়েছে অসংখ্য বাহারী ফুল। এই নির্জন বাহারি অরণ্যে পদচারণা করে ক্লান্ত বােধ হলে রয়েছে সুন্দর কংক্রীটের ছাতার নিচে বসবার জায়গা। দিঘীর দিকে চেয়ে পাখির কলতানে নির্বাক জঙ্গল মহলে কেটে যাবে অবসরের দুটি দিন। বণসন্দরীর জলাশয়ে বােটিং এবং মাছ ধরবার ব্যবস্থা আছে। পরিবারের ছােট শিশুদের জঙ্গলে ঘেরা এ জলাশয়ে বােট ভ্রমণ সত্যিই মনােরম। বাংলাের চতুর্দিকে বিস্তীর্ণ জঙ্গল। লজ ছাড়িয়ে হরিতকী, আকাশমণি, বহেরা, শাল-পিয়ালের জঙ্গলে জীবজন্তু বিশেষ নেই। অবশিষ্ট রয়েছে কিছু শিয়াল, খাটাশ, ভাম, বানর, হেড়েল, খরগােশ, বনশুয়াের, বনমুরগী ও বহু প্রকারের সাপ। শােনা যায় একসময় এ জঙ্গল প্রচুর ভাল্লুক দেখা যেত। রাজা ভালুক শিকারের জন্য মাচান বানিয়েছিলেন বলেই এ গ্রামের এই অদ্ভুত  নাম। আজও লজের পাশে জঙ্গলে সেই মাচান দাঁড়িয়ে আছে।। ভালকী মাচান ভ্রমণে দেখে নেওয়া যায় যমুনা দিঘী মৎস্য খামার, রয়েছে। একটি সুন্দর ফিসারী বাংলাে। অভিরামপুরের কাছে দরিয়াপুরে রয়েছে খ্যাতনামা ডােকরা শিল্পী এবং শিল্পের অবস্থান। পূর্ণিমার রাতে অরণ্যসুন্দরী লজ সত্যিই আকষর্ণীয়। চাইলে এখানে আদিবাসী লােকনৃত্য বা লােকসঙ্গীতের ব্যবস্থাও করা যায়। দুটি দিন শাল-সেগুনের জঙ্গল হলে লালমাটির নির্জন পথে হেঁটে এক অদ্ভুত ভালাে লাগা নিয়ে ঘুরে আসুন ভালকি মাচান।
ভালকীমাচান ভ্রমণ
কিভাবে যাবেন?
পুরের মেন লাইনের মানকর স্টেশনে নেমে বাসে ২৫ কিমি দূরেমপুর। সেখান থেকে ডান বিকায় ভালকী মাচানে অরণ্যসুন্দরী লজ। দূরত্ব ৪-৫ কিমি।
কোথায় থাকবেন?
এই দ্বিতল লজে রয়েছে দুটি ডর্মিটরি। একটি ১২ শয্যার। অপরটি শয্যার। ৪টি ঘর রয়েছে। ঘরগুলি মােটামুটি সুসজ্জিত এবং পরিচ্ছন্ন। খাওয়ার খরচ প্রতিদিন প্রতিজন মােটামুটি ২৫০-৩০০ টাকা। যােগাযােগ – অরণ্যসুন্দরী লজ, মােঃ ৯৮৩০৬১৩০৫৬, স্থির নম্বর : ২৩৬২৮৫৪৫৮৫৭৪।

কাছে দূরে অচিনপুরে : ভ্রমন গাইড

লেখক – প্রবীর বসু

লেখাটিকে কতগুলি ট্রফি দেবেন ?

Click on a star to rate it!

Average rating 5 / 5. Vote count: 2

No votes so far! Be the first to rate this post.

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •   
  •  

Leave a Reply

Next Post

ডিম কেন ডিম্বাকার ?

5 (2) আমার সাত বছরের ছেলে সৃজন, আজকে ডিমের ঝোল দিয়ে ভাত খেতে খেতে আমাকে প্রশ্ন করল বাবা ডিম কেন এরকম দেখতে? ডিম ডিম্বাকৃতির কেন? ডিম, গোল বা চতুর্ভুজ নয় কেন? প্রশ্নটা সহজ কিন্তু উত্তরটা কঠিন । ডিমের খোসা আসলে ডিমের ভ্রূণের উপর ক্যালসিয়াম কার্বনেটের শক্ত আবরণ। খোসার এই ডিম্বাকৃতির […]
error: কপি নয় সৃষ্টি করুন
%d bloggers like this: