খাবারে বন্ধ হোক পাম তেলের ব্যবহার : মানুষ প্রাণী পৃথিবী সবাই বাঁচুক

@
3.7
(3)

স্ন্যাক্স থেকে কসমেটিক্স কী না তৈরি হয় এই তেল দিয়ে! ভারত এই তেলের সবচেয়ে বড় ভোক্তা ও আমদানিকারি, দুটোই (consumer and importer)। ভীষণ সস্তা এই উদ্ভিজ তেলটি যদিও পশ্চিম আফ্রিকা থেকে সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়েছে তবে এই মুহূর্তে এই তেলের সবথেকে বড় উৎপাদক মালায়েশিয়া আর ইন্দোনেশিয়া।Image result for palm oil

দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার ঘন বৃষ্টিঅরণ্য বা রেনফরেস্ট সাফ করে, এই সস্তা পাম তেল উৎপাদনের কারবার চলছে বেশ কয়েকটি দেশে। পৃথিবীর ৯০ শতাংশ পাম তেলের সরবরাহ দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া থেকে আসে। আর অন্য যে সব ইন্ডাস্ট্রিতে পাম তেল ব্যবহার হয়, সেগুলোকে ছেড়ে দিলেও ফুড ইন্ডাস্ট্রিকে হাল্কা ভাবে নিলে হবে না। উৎপন্ন তেলের দুই তৃতীয়াংশই যায় প্রসেসড ফুড ইন্ডাস্ট্রিতে। এর ফলে যখনই আপনি কোন আলট্রা প্রসেসড খাবার খাচ্ছেন, তখনই না চাইলেও, বাধ্য হয়ে আপনাকে পাম তেল খেতে হচ্ছে। পাম তেল ৫০ শতাংশ স্যাচুরেটেড, পাম কারনেল তেল ৮৫ শতাংশ স্যাচুরেটেড। সম্পৃক্ত বা স্যাচুরেটেড ফ্যাট ক্ষতিকর। যত স্যাচুরেটেড, তত ঘরের তাপমাত্রায় কঠিন, তত খারাপ। পাম তেল অর্ধ কঠিন কিন্তু কৃত্রিম উপায়ে তেলের মত তরল বানানো হয়। তারপর সরাসরি রিফাইন্ড পাম তেল হিসাবে খাওয়া হয় বা অন্য তেলের সাথে মিশিয়ে দেওয়া হয় বা প্রসেসড খাদ্য তৈরিতে কাজে লাগানো হয়।

Image result for palm oil

পাম তেলের ব্যবহার বৃদ্ধি পেয়েছে এরকম ২৩ টি দেশ থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে বলা যায়, পাম তেলের ব্যবহার বাড়ার সাথে

১)ইস্কিমিক (ischaemic) হার্টের অসুখ থেকে মৃত্যুর হার বেড়েছে,

২)রক্তের মধ্যে বেশি আর্থোজেনিক-কম-ঘনত্ব-যুক্ত-লিপোপ্রোটিন-কোলেস্টেরল বেড়েছে,

৩)বারবার গরম করা তেল খেয়ে আর্টেরিয়াল প্লাক (arterial plaque formation) বেড়েছে,

৪)হৃদযন্ত্র ও রক্তবাহের অসুখ বেড়েছে।

হার্ভার্ড স্কুল অফ পাবলিক হেলথের একটি গবেষণা পত্রে বলা হয়েছে ২০৩০ সালের মধ্যে ভারত প্রায় ৪.৬ ট্রিলিয়ন ডলার খরচ করবে শুধুমাত্র হৃদযন্ত্র আর রক্তবাহ ঘটিত অসুখের পিছনে।

পাম তেল যা আফ্রিকান অয়েল পাম বা Elaeis guineensis থেকে পাওয়া যায় তা বাজারে ২০০ টি বিভিন্ন নামে চলছে, বিভিন্ন ভাবে ব্যবহার হচ্ছে। যেমন ভেজিটেবল অয়েল, ভেজিটেবল ফ্যাট, পাম কার্নেল, পাম কার্নেল তেল, পাম ফ্রুট অয়েল, পালমেট(palmate), পালমিটেট(palmitate), পালমোলিন(palmolein), পালমিটিক অ্যাসিড (palmitic acid), পাম স্টিয়ারিন (palm stearine), পামিটয়েল অক্সোস্টেরামাইড (palmitoyl oxostearamide), পামিটয়েল টেট্রাপেপ্টাইড-৩ (palmitoyl tetrapeptide-3), সোডিয়াম পাম কার্নেলেট (sodium palm kernelate), অকটাইল পালমিটেট (octyl palmitate), পালমিটাইল অ্যালকহল (palmityl alcohol) ইত্যাদি। লেবেলে এইসব নাম দেখলেই বুঝবেন পাম তেল ব্যবহার করা হয়েছে।

Image result for palm oil

উৎপন্ন তেল না খেয়ে শরীর তাৎক্ষনিক ভাবে বেঁচে যাবে কিন্তু পৃথিবী বাঁচবে কি? খাদ্য সংক্রান্ত ব্যবসা ছাড়াও অন্য ব্যবসায় এই তেলের বহুল ব্যবহারের ফলে এর উৎপাদন বন্ধ করা সম্ভব নয়। বাস্তবে আফ্রিকান অয়েল পাম উদ্ভিদ প্রজাতিটি সবথেকে কম খরচে, কম সময়ে, কম জায়গায় সবথেকে বেশি তেল উৎপাদনে সক্ষম। সুতরাং একরের পর একর জঙ্গল কেটে পাম তেলের গাছের এক ফসলি চাষ অর্থাৎ মোনোকালচার হচ্ছে। মোনোকালচার একটি ভয়ঙ্কর প্রবণতা। এতে প্রাকৃতিক, স্বাভাবিক বাস্তুতন্ত্র ধবংস হয়ে যায় এবং তার বদলে জন্ম নেয় একটি অস্বাভাবিক, কৃত্রিম বাস্তুতন্ত্র। কৃত্রিম বাস্তুতন্ত্রে স্থানীয় প্রজাতির প্রাণীদের খাদ্য থাকে না, সঠিক বাসস্থানও থাকে না ফলে স্থানীয় প্রজাতির মৃত্যু অবধারিত হয়। দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার রেনফরেস্টে যে সব এন্ডেমিক (endemic) এবং বিপদগ্রস্থ (endangered) প্রাণীরা আছে, খাদ্য ও বাসস্থান হারিয়ে, তারা (যেমন বাঘ, গণ্ডার, হাতি ইত্যাদি প্রাণীরা) আরো বিপদে পড়ছে। যাদের সংরক্ষণ দরকার উল্টে তারাই প্রায় বিলুপ্তির সম্মুখীন।

Image result for palm oil

আর জঙ্গল পুড়িয়ে ফেলার ফলে বাতাসে গ্রিন হাউস গ্যাস আরও বেড়ে যাচ্ছে। বাতাসে ভাসমান কণার (particulate matter) পরিমাণ বেড়ে যাচ্ছে। জল ও মৃত্তিকা দূষণ হচ্ছে সে তো বলাই বাহুল্য। যখন যখন জঙ্গল পোড়ানো হচ্ছে তখন ওখানে কৃত্রিম কুয়াশার বা হেজের সৃষ্টি হচ্ছে। একে “হেজ এপিসোড” বলা হচ্ছে। এই কৃত্রিম কুয়াশা কিন্তু এক জায়গাতেই সীমাবদ্ধ থাকছে না। দেশের সীমানা ছাড়িয়ে চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ছে। হেজ এপিসোডের সবথেকে বেশি প্রভাব পড়ছে গর্ভস্থ ভ্রূণ, সদ্যজাত শিশু আর ছোট ছোট বাচ্চাদের স্বাস্থ্যের উপর। পরিণত বয়সের মানুষও নিস্তার পাচ্ছে না। একটি রিপোর্ট অনুযায়ী ২০১৫ সালে ঐ অঞ্চলের প্রায় ১ লাখ লোকের অকাল মৃত্যু হয়েছে যার কারণ বাতাসের দূষণ এবং তার ফলে হওয়া শ্বাসযন্ত্রের অসুখ, চোখ আর ত্বকের রোগ আর হার্টের অসুখ।

Image result for heart attack

পাম তেল আমাদের স্বাস্থ্যের এবং যে পদ্ধতিতে চাষ হচ্ছে তা পৃথিবীর স্বাস্থ্যের ভয়ানক ক্ষতি ডেকে আনছে। ভারত সরকার পাম তেল আমদানির উপর অতিরিক্ত শুল্ক ধার্য করলে আমরা এই বিশেষ তেলের ব্যবহার বন্ধ করার দিকে এক ধাপ এগোব।

AddText_11-08-11.14.50.PNG

লেখাটিকে কতগুলি ট্রফি দেবেন ?

Click on a star to rate it!

Average rating 3.7 / 5. Vote count: 3

No votes so far! Be the first to rate this post.

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •   
  •  

Leave a Reply

Next Post

রােবােট সার্জেন ও রসায়নে নবেল প্রাইজ

3.7 (3) ১৯৫৯ সাল। ক্যালিফোর্নিয়া ইনষ্টিটিউট অফ টেকনােলজিতে অ্যামেরিকান ফিজিক্যাল সােসাইটির মিটিং-এ বক্তব্য রাখছেন পদার্থবিদ রিচার্ড ফাইনম্যান। অসম্ভব মেধাবী এই বিজ্ঞানী তার স্বভাবসিদ্ধ নাটকীয় উপস্থাপনায় Plenty of Room at the Bottom এই শিরােনামে যে বক্তব্য সেদিন তিনি রেখেছিলেন তাকে অনেকেই ন্যানােটেকনােলজির ধারণাগত ভিত্তি বলে মনে করেন। ন্যানাে-রােবােটিক সার্জারি ও লােকালাইজড […]
error: কপি নয় সৃষ্টি করুন
%d bloggers like this: