বন্যপ্রাণের স্পন্দন বাঁচিয়ে রাখতে হলে কঠিন লড়াই সামনে

@
5
(2)

বন্যপ্রাণী ও উদ্ভিদ প্রকৃতি মায়ের সম্পদ। তাঁর নিজের কোলে বেড়ে ওঠা সন্তান। মানুষ তো কবেই তাঁর কোল থেকে নেমে পড়েছে। নিজের পায়ে দাঁড়াতে শিখেছে। হাঁটতে শিখেছে। আর নিজেকে স্বনির্ভর ভেবে, মাকে মারতেও শিখেছে।

 

Image result for sustain all life on earth

পৃথিবীর বিপুল জীববৈচিত্র্য আজ বিপন্ন, এই অন্য সন্তানটির জন্য। সুতরাং এই অন্য সন্তানটিকেই সচেতন হতে হবে। সেই উদ্দেশ্যেই, বিপন্ন বন্যপ্রাণ সম্বন্ধে সচেতনতা গড়ে তুলতে, তেসরা মার্চ দিনটিকে, ইউনাইটেড নেশনস একটি বিশেষ দিন হিসাবে পালন করে। কেন তেসরা মার্চ দিনটিকে বাছা হয়েছে? কারণ 1973 সালে এই দিনটিতেই সাইটস (CITES : Convention on International Trade in Endangered Species of Wild Fauna and Flora) সম্মেলনের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল। এই বছর বিশ্ব বন্যপ্রাণ দিবস (World Wildlife Day 2020) উদযাপন হবে “Sustaining all life on Earth” বিষয়ের উপর। আমাদের শপথ হবে বন্যপ্রাণের বৈচিত্র্য বাঁচিয়ে রাখা।

maxresdefault

কিছু মানুষের ভোগ ও লালসার শিকার গোটা জীবজগৎ। তারা দুরকম ভাবে বন্য প্রাণের উপর আক্রমণ চালাচ্ছে —-

  1. বন্য প্রাণীদের বাসস্থান ও খাদ্যের উপর আক্রমন —- জঙ্গল কেটে সাফ করে দেওয়ার ফলে বন্যপ্রাণী আশ্রয় হারিয়ে, খাদ্য হারিয়ে, ধীরে ধীরে অবলুপ্ত হচ্ছে।
  2. সরাসরি উদ্ভিদ বা প্রাণীটিকেই আক্রমণ —- অর্থনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ উদ্ভিদের চোরাকারবার ও বিলুপ্তপ্রায় প্রাণীদের চোরাশিকার জীব বৈচিত্রের ক্ষেত্রে বিপর্যয় ডেকে আনছে।

 

বন্যপ্রাণ সংক্রান্ত অপরাধ, এক বিরাট ব্যবসা। আন্তর্জাতিক চক্রের মাধ্যমে কোটি কোটি টাকার বেআইনি ব্যবসা হয়। উদাহরণ হিসাবে অ্যামাজনের জঙ্গলের কাঠের চোরাকারবারের বিষয়টি দেখা যাক। কেন এই চোরাকারবারিরা ধরা পড়ে না? প্রথমত, বনরক্ষীদের হানা দেওয়ার খবর আগে থেকেই কাঠের চোরাকারবারিদের কাছে পৌঁছে যায় স্পাই মারফত। সুতরাং অপরাধীদের হাতেনাতে ধরা প্রায় অসম্ভব। দ্বিতীয়ত, গাছ কাটার যন্ত্রপাতি এমনভাবে রঙ করা থাকে বা গাছের ডালপালা আর পাতা দিয়ে এমনভাবে ক্যামোফ্ল্যাজ করে রাখা থাকে যে, বন রক্ষীরা হেলিকপটার থেকে নজরদারি করার সময় ধরতেই পারবে না কোন জায়গায় গাছ কাটার মেসিন কাজ করছে। তৃতীয়ত, বন রক্ষীরা যাতে হেলিকপটার থেকে নজরদারিই চালাতে না পারে, যাতে হেলিকপটার অকেজো হয়ে থাকে, সেজন্য রাতের অন্ধকারে তেলের ট্যাংকার জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। এরা কি না করতে পারে! তাছাড়া আমলাদের ঘুষ দিয়ে, তাদের দিয়ে জাল লাইসেন্সে সই করিয়ে নেওয়া তো আছেই!

Image result for sustain all life on earth

আরেকটি উদাহরণ আমাদের জাতীয় পশু। ভারতীয় জঙ্গলের রাজা, বাঘ (Panthera tigris) লাল তালিকার প্রাণী। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় বাঘের অবস্থা সবথেকে খারাপ। বালি এবং জাভার বাঘ বিলুপ্ত। সুমাত্রার বাঘও বিলুপ্তির পথে। শুধু বাসস্থান হারিয়ে বা খাদ্যের অভাবে এরা লুপ্ত হচ্ছে না, মানুষের অদ্ভুত খেয়ালেও বিলুপ্ত হচ্ছে। বাঘের চামড়া, দাঁত, লোম, গোঁফ, রক্ত, চোখ, যৌনাঙ্গ, হাড়, বলতে গেলে পুরো শরীরটাই চিনের পারম্পরিক ওষুধ তৈরিতে ব্যবহার হয়। সব কিছুই চড়া দামে বিক্রি হয়। যেমন ধরুন প্রতি কেজি বাঘের হাড়ের দাম 140 থেকে 370 মার্কিন ডলার পর্যন্ত ওঠানামা করে। তাঁর সাথে চিনের অনেক জায়গায় বাঘের মাংস একটি ডেলিকেসি বিশেষ। এমনকি বাঘের গোবর (গোবর বলা উচিত কি?) দিয়ে চিনারা ফোড়া আর মদের আসক্তি সারায় (তবে একটা ভালো খবর, গত 24 শে ফেব্রুয়ারি চিন বেআইনি বন্যপ্রাণী ব্যবসার উপর তাৎক্ষণিক নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। তবে বন্য প্রাণী বাঁচানোর উপলক্ষে নয়, করোনা ভাইরাসের ভয়ে)।

Image result for china made medicine from tigers body

 

দুঃখের কথা হল, অনেক মানুষ মনে করেন বন্যপ্রাণী ও উদ্ভিদরা যেন পৃথিবীর দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক। মানুষই পৃথিবীর মালিক। মানুষের সিধান্তই শেষ কথা। মানুষ ঠিক করবে পৃথিবীতে কতটা বন জঙ্গল থাকবে আর কত পশুপাখি বেঁচে থাকবে! এই মানসিকতার মানুষ দরিদ্র থেকে ধনী, ক্ষমতাহীন থেকে সর্বোচ্চ ক্ষমতাশালী, শিক্ষিত এবং অশিক্ষিত সব ধরণের মধ্যেই আছেন। তাই এই লড়াই এত কঠিন। একটি স্বাভাবিক, প্রাকৃতিক, বন্য বাস্তুতন্ত্রে একটি উদ্ভিদ ও একটি প্রাণীর যা যা অধিকার, তা রক্ষা করুন এবং রক্ষা করতে সচেতনতা গড়ে তুলুন। প্রাণের বৈচিত্র বাঁচিয়ে রাখা কেন প্রয়োজন তা বুঝতে পারলে অনেকেই হয়ত এই বন্য হত্যাকাণ্ড গুলিকেও মানব হত্যার মত গুরুত্ব সহকারে দেখতে শুরু করবেন।

মৌমিতা হীরা

লেখাটিকে কতগুলি ট্রফি দেবেন ?

Click on a star to rate it!

Average rating 5 / 5. Vote count: 2

No votes so far! Be the first to rate this post.

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •   
  •  

Leave a Reply

Next Post

আলাে থেকে হঠাৎ অন্ধকারে এলে প্রথমটায় কিছু দেখা যায় না কেন?

5 (2) মানুষের চোখ এমন এক অসাধারণ সংবেদনশীল কোষগুচ্ছ দিয়ে তৈরি, তা যেমন তীব্র আলােতে দেখতে পারে, তেমনি আবার প্রায় অন্ধকারে দেখতে পারে। আলাে অনুভব করার জন্য চোখের পর্দা বা রেটিনায় আছে দু’ধরনের কোষ রড ও কোন কোষ। চড়া আলােয় দেখা বা রঙের অস্তিত্ব ধরতে পারে কোন কোষ। আর রড […]
error: কপি নয় সৃষ্টি করুন
%d bloggers like this: