সিগারেটের ধোঁয়া

সিগারেট খাওয়া স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক, এবিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। তাই বলে সিগারেট নিয়ে বিজ্ঞানের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে কিন্তু কোনও বাধা নেই। আজকে সেরকম একটা বিষয়ের কথাই বলব।
খুব ভাল করে লক্ষ করলে দেখবেন, জ্বলন্ত সিগারেট থেকে ধোঁয়া যখন উপরের দিকে উঠতে থাকে তখন সেই ধোঁয়ার রঙ কিছুটা নীলাভ থাকে। কিন্তু পাকা ধূমপায়ীরা যখন সেই ধোঁয়া মুখের ভিতরে টেনে
নিয়ে কিছুক্ষণ পরে আবার বাইরে ছেড়ে দেন, তখন তার রঙ হয় সাদা।

Image result for cigarette smoke

বলতে পারেন এই পরিবর্তনটা কেন হয়?
যে কোনাে ধোঁয়াই আসলে খুব ছােট ছােট কণার সমবায়। ধোঁয়ার  এই ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কণা দ্বারা আলাে বিক্ষেপিত হয়। এই সমস্ত কণার আকার আলাের তরঙ্গদৈর্ঘ্যের থেকে ছােট হলে নীল রঙের আলাে লালচে আলাের থেকে বেশি পরিমানে বিক্ষেপিত হয় (এটাই বিজ্ঞানী র‍্যালের বিক্ষেপন তত্ত্ব বা থিয়ােরি অফ স্ক্যাটারিং)। সেই কারণেই পাশ থেকে দেখলে সিগারেটের ধোঁয়াকে কিছুটা নীলচে দেখায় (তবে সরাসরি
সিগারেটের আগুনের দিকে তাকালে কিন্তু এই ধোঁয়াকে লালচে বা হলদে দেখাবে)।
সিগারেটের ধোঁয়া মুখের ভিতরে ঢুকিয়ে নিলে সেই ধোঁয়ার ছােট ছােট কণাগুলােকে কেন্দ্র করে জলীয় বাষ্পের ঘনীভবন হয়। ফলে যে জলকণা তৈরি হয় তারা আকারে অনেকটাই বেড়ে যায়; তাদের
আকার আলাের তরঙ্গদৈর্ঘ্যের কাছাকাছি এসে পড়ে। ফলে হলদে আলাের বিক্ষেপন অনেক বেশি হয়।

Image result for cigarette smoke

অনিন্দ্য দে

Published by @

পরিবেশ, পরিবেশ আন্দোলন, দূষণ, গাছ, নদী, পাহাড়, সাগর

Leave a Reply

%d bloggers like this: