এত জল কি করে এলাে?

@
5
(1)

সেই ছােটবেলাকার পাঠ্যবইতে পড়ানাে হয় একদা জ্বলন্ত অগ্নিপিন্ড পৃথিবী, হাজার হাজার বছর ধরে ঠান্ডা হয়ে কঠিন অবস্থায় এসে শুরু হয় বজ্রবিদ্যুৎসহ বর্ষার যুগ। ভূত্বকের নীচু অঞ্চল ভরে ওঠে জলে।
তৈরি হয় সাগর-মহাসাগর। কিন্তু ভাবলে সত্যি বিস্ময় লাগে যে আমাদের বাসভূমি এই গ্রহটিতে এত জল এলাে কি করে? ভূত্বকের প্রায় ৭১ শতাংশ স্থান জলমগ্ন। আর পরিমাণের নিরিখে পৃথিবীর মােট জলের ৯৬.৫ শতাংশ রয়েছে সাগর বা মহাসাগরের বিপুল জলরাশি হিসাবে। তবে এই জানা তত্ত্ব হয়তাে খুব শীঘ্রই পাল্টে ফেলতে বাধ্য হব আমরা। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দাবি করা হয়েছে পৃথিবীর এই
জল এসেছে সৌরমন্ডলের গ্যাসীয় অংশ থেকে, যা সূর্যের জন্মের পর অবশিষ্ট হিসাবে ছড়িয়ে ছিল।

Image result for সােলার নেবুলাতাছাড়া বরফ সমৃদ্ধ ধূমকেতুগুলিও এই জলের উৎস হিসাবে ভাবা যেতে পারে। হাইড্রোজেন ও অক্সিজেন
এই দুই গ্যাসীয় মৌলের সংযুক্তিতে তৈরি হয় জল। গবেষকদলের অন্যতম অ্যারিজোনা স্টেট ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক পিটার বাসেকের কথায় সূর্য সৃষ্টির পরবর্তী সময়ে সৌরজগতে অবশিষ্ট ধুলাের মেঘ,যাকে ‘সােলার নেবুলা’ বলা হয়ে থাকে, সেইটিই আসলে হাইড্রোজেনের বিরাট উৎস। এই হাইড্রোজেন সেই সৃষ্টির আদিকালের ভীষণাবস্থায় ভূত্বকের কঠিন অংশের (যেখানে বিভিন্ন অক্সাইড হিসাবে প্রচুর পরিমাণ অক্সিজেন রয়েছে) সাথে যুক্ত হয়ে জলে পরিণত হয়েছে।
এই তত্ত্ব সত্যিই সৌরমন্ডলের বাইরেও পৃথিবী সদৃশ গ্রহের অস্তিত্বের ভাবনাকে উসকে দেয়। আর জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা তাে ইতিমধ্যেই প্রায় ৩৮০০টি গ্রহের সন্ধান পেয়েছেন, যেগুলি অন্য একাধিক নক্ষত্রকে কেন্দ্র করে ঘুরছে এবং যাদের মধ্যে অনেকগুলিরই ভূপৃষ্ঠ ও পরিবেশ প্রায় আমাদের পৃথিবীর মতােই।

Image result for সােলার নেবুলা

অমতাভ চক্রবর্তী।

লেখাটিকে কতগুলি ট্রফি দেবেন ?

Click on a star to rate it!

Average rating 5 / 5. Vote count: 1

No votes so far! Be the first to rate this post.

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •   
  •  
Next Post

খাদ্যের মাধ্যমে স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমান

5 (1) ডাঃ শঙ্কর কুমার নাথ ক্যান্সার চিকিৎসক ভারতে এখন স্তন ক্যানসারের প্রকোপ ক্রমশ বেড়ে চলেছে। মূল কারণ : আমরা অন্ধভাবে পাশ্চাত্যের জীবনশৈলিকে অনুকরণ করে চলেছি চিরাচরিত ভারতীয় ঐতিহ্যবাহী জীবনযাত্রাকে ত্যাগ করে। স্তন সম্পর্কে অত্যধিক সচেতনতা, শারীরিক সৌন্দর্যের প্রতি অযথা অতিরিক্ত যত্নবান হওয়া, কৃত্রিমভাবে স্তনের সৌন্দর্য বৃদ্ধির প্রতি লক্ষ দেওয়া, […]
error: কপি নয় সৃষ্টি করুন
%d bloggers like this: