অন্য পথের পথিক

1
5
(2)

পাট দিয়ে বাইসাইকেল তৈরি করে ...

যারা আমাদের চিরাচরিত রাস্তায় হাঁটেননি,অন্য পথে হেঁটেছেন হয়তো আমরা সংখ্যা গরিষ্টরা তাঁদের নিয়ে মজা করেছি বা আজও নিময়মের বাইরে গিয়ে যাঁরা চলেন তাঁরা সমাজের বিদ্রুপের পাত্র হন ! এদের এই কার্যকলাপই আমাদের সমাজ পরিবেশ কে আজও অক্ষত রেখেছে …..এমনই. কিছু, মানুষকে  আপনাদের চেনানোর সঠিক সময় আগত l

পাটের ব্যাগ,জুতো,গহনা ইত্যাদির সাথে তো আপনারা পরিচিত , কিন্তু পাট দিয়ে তৈরি সাইকেলের কথা শুনেছেন এর আগে?ঠিকই পড়ছেন সাইকেল !

বাংলাদেশের তরুণ ইঞ্জিনিয়ার মহম্মদ আবু নোমান সৈকত এই আপাত অবাস্তব   কাজটিকেই সত্যি করে দেখিয়েছেন। পাটের তৈরি বাইসাইকেল সত্যিই রাস্তায় চলছে।

তিনি হালকা বস্তু দিয়ে সাইকেলের মূল কাঠামো তৈরির কথা চিন্তা করেন। কার্বন ফাইবারের কথা প্রথমে মাথায় আসলেও; অত্যাধিক দাম ছিলো চিন্তার কারণ, শেষে  পাটের কথা ভাবেন ।কিরূপ তন্তু ব্যবহার করা হবে, ঘনত্ব কত হবে, সমস্ত বিষয় খুঁটিিনাটি জেনে 2015 সালে থেকে কাজে নামেন তিনি। প্রথমে পাট আর রেজিন ব্যবহার করে শক্ত পাইপের আকার দেন। তারপর প্রয়োজনমতো সেই পাইপ কেটে তৈরি হয় সাইকেল, উৎপাদনে খরচ হয় 15-20 হাজার। রেজিন ব্যবহারের ফলে  পাটের পচন ধরবে  না। অ্যালুমিনিয়াম বা স্টিলের কাঠামো তৈরিতে যে পরিমাণ জল প্রয়োজন হয় , তার থেকে অনেক কম জল ব্যবহৃত হয়। ফলে পরিবেশের দিক থেকেও সাশ্রয় হচ্ছে পাটের সাইকেলে।

শ্রুতি দেবীর কথায় আসি,আমার মতে যুগান্তকারী আবিষ্কার !

শ্রুতি আহুজার, পরিবেশের সুরক্ষার জন্য জঞ্জাল থেকে এলপিজি তৈরি করছেন, শুধুমাত্র এই কাজ করার জন্য তাকে আমেরিকার আরামের চাকরি ছাড়তে হয়েছে।

বিপুল পরিমাণ জঞ্জাল তৈরি হয় ভারতে প্রতিদিনই । যেগুলো জমা হয়ে পরিণত হয়; জঞ্জালের পাহাড়ে। বর্জ্য প্রক্রিয়াকরনের   জন্য বর্জ্য পোড়ানোর ফলে যে বিপুল কার্বন ডাই অক্সাইড-সহ অন্যান্য পদার্থ নির্গত হয়, ফলে পরিবেশ দূষিত হয়ে পড়ে।

২০১০ সালে ভারতে ফিরে আসার পর, শ্রুতি  নিজের কোম্পানি শুরু করার পরিকল্পনা করতে থাকেন। আমেরিকার চাকরি ছেড়ে, পরিবেশ রক্ষার ব্রত নিয়ে ভারতে কাজ করে যাচ্ছেন শ্রুতি আহুজা। বিষয় একটাই, বর্জ্যকে কাজে লাগাতে হবে, শুরুটা হয়েগেল পোলট্রি ফার্ম থেকে। গবেষণায় উঠে এল পোলট্রি থেকে উৎপন্ন হওয়া বর্জ্যের বিপুল পরিমাণের পরিসংখ্যান । তাঁর গবেষণা অনুযায়ী, প্রতি বছর ভারতে 23 মিলিয়ন টন পোলট্রির বর্জ্য তৈরি হয়। কিন্তু কোন প্রক্রিয়াকরণ হয় না সেগুলোর। এই ভাবনা    থেকেই শুরু আহুজা ইঞ্জিনিয়ারিং সার্ভিস প্রাইভেট লিমিটেডের।2012 সাল থেকে এই কোম্পানি জৈব বর্জ্য থেকে এলপিজি গ্যাস তৈরি করছেন। 12000  টন বর্জ্য পরিণত হচ্ছে600 টনেরও বেশি এলপিজিতে। ভারতে 16টি বড় বায়োগ্যাস প্ল্যান্ট চালান তারা। সেই শুরুটা আজ দানবিক আকার নিয়েছে।

ডাঃ হরি নাথ, ভারতের সামরিক গবেষণা সংস্থা ডিআরডিও’র প্রাক্তন  গবেষক। এখন   তিনি দক্ষিণ ভারতের একটি জৈব খামারের স্থপতি। ডা. হরি নাথ, রিসার্চ পেপার আর পেটেন্টের জগৎ ছেড়ে চলে এসেছেন মাটির কাছে, এখন তিনি জৈব সার প্রস্তুত করেন । মাটিতে সার মেশান, বীজ বোনেন। এই  কাজের  মাধ্যমে  তিনি  হারিয়ে যাওয়া খাদ্য-সংস্কৃতিকেই ফিরিয়ে আনতে চাইছেন l ডা. হরি নাথের অনুপ্রেরণা হয়ে আছেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এপিজে আব্দুল কালাম। 2005 সাল,আবদুল কালাম রাষ্ট্রপতি এবং ডা. হরি নাথ তখন ডিআরডিও’র গবেষক। পোস্ট ডক্টরাল গবেষণার জন্য ডাক এলো ক্যালিফোর্নিয়া মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটি থেকে। সেখানে যেতে গেলে ভারত সরকারের অনুমতি দরকার। অনুমতি দিলেন রাষ্ট্রপতি আর সেইসঙ্গে বললেন দেশে ফিরে আসতে।

ফেরার কথা প্রায় ভুলেই গিয়েছিলেন তিনি কিন্তু মনে পড়লো একটি ঘটনার প্রেক্ষিতে; দেশে তখন তাঁর বৃদ্ধা মা থাকেন। বয়সের ভারে স্পন্ডালাইটিস এবং আর্থ্রাইটিসে কাহিল হয়ে  পড়েছিলেন। ডাক্তাররা বিশেষ কোনো চিকিৎসাই করতে পারছিলেন না। যা হয় আরকি !

ডা. হরিনাথ ওই সময় একটি জার্নাল  থেকে জানতে পারেন সজনে শাক এইধরনের ব্যথায় বিশেষ উপকারী।তিনি তাঁর মায়ের জন্য তাই ব্যবস্থা করেন l  প্রাকৃতিক চিকিৎসায় সেরে উঠলেন মা। এই ঘটনাই তাঁকে নতুন পথের সন্ধান দেয়, দেশে ফিরে আসেন ডা. হরি নাথ। গবেষণা নয়, নেমে পড়েন চাষের কাজে।

মানুষকে নানারকম রোগের হাত থেকে বাঁচাতে পারে একমাত্র চিরাচরিত খাদ্যাভ্যাস। মানুষের মধ্যে এই সচেতনতার বার্তা ছড়াতে চান ডা. হরি নাথ।তিনি সে চেষ্টা নিরলস ভাবে করেই যাচ্ছেন।

(C) সৌভিক রায়

লেখাটিকে কতগুলি ট্রফি দেবেন ?

Click on a star to rate it!

Average rating 5 / 5. Vote count: 2

No votes so far! Be the first to rate this post.

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •   
  •  

One thought on “অন্য পথের পথিক

  1. THIS CYCLE IS NO LONGER LONGIBITY AS WELL THEY MAY NOT BE HARDY , AND RUNNING VERY EASILY. JOYDEV DEY

Leave a Reply

Next Post

ফরেস্ট ম্যানদের উপাখ্যান-2

5 (2)   আগের পর্বে ভারতের তিন অরণ্য প্রাণ মানুষের কথা বলেছিলাম যাঁরা নিরালস ভাবে বনভূমি রক্ষা করার চেষ্টা এবং নতুন বনভূমি বিস্তার করে যাচ্ছেন l এই রকমই দুজনের কথা আমরা এই পর্বে জানবো,প্রথম জন কিন্তু ভারতের বাইরে সেনেগালের এক বুড়ো! এক-একটি ম্যানগ্রোভ গাছের চারাকে জলের নিচে কাদার ভিতর পুঁতে […]
error: কপি নয় সৃষ্টি করুন
%d bloggers like this: